জন্ম নিবন্ধন যাচাই | জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন ও সংশোধন করার উপায়

জন্ম নিবন্ধন যাচাই : আমি আজ এই আর্টিকেলে আপনাদের জানাব : জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন ও সংশোধ করার উপায়।

আমাদের বাংলাদেশে আগের সময় গুলোতে জন্ম নিবন্ধন সনদ গুলো ছিল হাতে কলমে লেখা। বাংলাদেশ আধুনিক হওয়ার পরে এটি কম্পিউটারাইজ করা হয়।

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ একটি ডিজিটাল দেশ। তাই এখন জন্ম নিবন্ধন ডিডিজাল পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়। 

আগের সময় গুলোর মতো এখন আর ইউনিয়ম পরিষদ গুলোতে গিয়ে ভির জমাতে হয় না। আমাদের জন্ধ নিবন্ধন যাচাই জন্ম নিবন্ধন অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন ও সংশোধ করার সুযোগ পেয়ে থাকি।

আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন করা নিয়ে চিন্তিত থাকেন। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। আমাদের এই নিবন্ধে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন নিয়ে বিস্তাতি তথ্য সমূহঃ

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন

বর্তমান সময়ে জন্ম নিবন্ধন এতটা গুরুত্ব পূর্ণ সনদ যা, আমাদের দেশে চাকরির জন্য অনেক ভূমিকা পালন করে। 

এছাড়া স্কুল, কলেজে গুলোত জন্ম নিবন্ধন ছাড়া কোন ভাবেই ভর্তি হওয়া সম্ভব নয়। তাই সকলের কাছে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি থাকা আবশ্যক।

আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন করা নিয়ে চিন্তিত থাকেন তবে, এই পেজের লেখা গুলো পড়ে বুঝতে পারবেন।  

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করে নিজের কাছে সংগ্রহ করতে পারবেন।

আরো দেখুনঃ

নতুন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন 

আপনি যদি অনলাইনে নতুন জন্ম নিবন্ধন করতে চান? তাহলে আপনাকে প্রথমে জন্মনিবন্ধন এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট bdris.gov.bd এখানে প্রবেশ করতে হবে।

আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য এটি ধাপে ধাপে দেখাব। কিভাবে সহজেই আপনার কম্পিউটার, ল্যাপটপ এবং স্মার্ট মোবাইল ফোন দ্বারা জন্ম নিবন্ধন আবেদন করবেন।

পদক্ষেপ নং- ০১

নতুন জন্ম নিবন্ধন করার জন্য আপনাকে bdris.gov.bd  এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। 

পদক্ষেপ নং- ০২

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরে। আপনাকে একটি পেজ দেওয়া হবে। সেখানে নিবন্ধক কার্যালয়ের জন্য আপনার জন্ম স্থান বা স্থায়ী ঠিকানা বিভাগ, জেলা, প্রভৃতি ধাপ পূরণ করার পরে ওয়ার্ড নির্বাচন করতে হবে।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধনের আবেদন ফরম প্রথমে ব্যক্তির নাম বাংলায় (ইউনিকোড) এ। এবং পরবর্তীতে ইংরেজিতে পূরণ এর পরে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সম্পাদন করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করবেন।

পরবর্তী বাটনে ক্লিক করার পরে আবেদন পত্রটি সংশ্লিষ্ট নিবন্ধক কার্যালয়ে স্থানান্তিত হবে। আবেদনকারীর আর কোন সংশোনধন করার সুযোগ থাকবে না। নিচের ছবিটি দেখুনঃ

নতুন জন্ম নিবন্ধন আদেন করার জন্য আপনি উক্ত ছতে যে, লাল বক্সে “জন্ম নিবন্ধন” “নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদ “ লেখা দেখতে পারছেন। সেটি ভালো ভাবে অনুসরণ করবেন।

তারপরে আপনি নিচের অংশে “জন্ম নিবন্ধন সনদ আপনার কোন ঠিকানায় অফিস থেকে সংগ্রহ করতে চান” নিচে দেওয়া বক্স থেকে নির্বাচন করে নিবেন। যেমন- জন্মস্থান, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা। যে কোন একটি ঠিকানা নির্বাচন করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করবেন।

পদক্ষেপ- ০৩

উপরে দেওয়া ছবিটি আপনি সঠিক ভাবে পূরণ করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করার পরে। আপনাকে আরো একটি পেজ দেওয়া হবে।
সেখানে “নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন” “নিবন্ধনাধনি ব্যক্তির পরিচিত বক্স পূরণ করতে হবে। যেমন-
নামের প্রথম অংশ বাংলায়, নামের শেষ অংশ বাংলায়
নামের প্রথম অংশ ইংরেজিতে, নামের শেষ অংশ ইংরেজিতে পূরণ করার পরে নিচের অংশে আপনি আরো বিস্তারিত তথ্য পূরণ করতে হবে। নিচের ছবিটি দেখুনঃ
পদক্ষেপ- ০৪
“অ্যাটাচমেন্ট অ্যাভেইলেবিলিটি চেক” অপশনে আপনি জন্ম নিবন্ধন তারিখ লেখার পরে আপনাকে নিচে দেওয়া একটি বক্স দেওয়া হবে।
সেখানে জন্য নিবন্ধন সম্পন্ন করার জন্য নিম্ন লিখিত ডকুমেন্ট গুলো প্রয়োজন পড়বে সেগুলো আপনাকে কাছে আছে কি না। সেগুলো যদি থাকে তাহলে “ আমার কাছে এই ডকুমেন্ট গুলো আছে” বা আমার কাছে এই ডকুমেন্ট গুলো নেই” অপশনে ক্লিক করবেন। নিচের ছবিটি দেখুনঃ
পদক্ষেপ- ০৫
জন্ম নিবন্ধন এর আবেদন করার জন্য আপনাকে এখন সম্পন্ন তথ্য গুলো যুক্ত করে দিতে হবে। নিচে দেওয়া ছবির মতো যেমন-
জন্ম তারিখ, পিতা ও মাতার কততম সন্তান, লিঙ্গ, জাতীয় পরীচয়পত্র নম্বর (যদি ১৮ এর উপরে হয়), 
জন্মস্থানের ঠিকানাঃ
দেশের নাম, বিভাগ, জেলা, সিটি কর্পোরেশন, ইউনিয়ন পরিষদ/উপজেলা, ওয়ার্ড/ অঞ্চল, ওয়ার্ড নং, ডাকঘর বাংলায় ও ইংরেজিতে, গ্রাম/পাড়া/মহল্লা বাংলায় ও ইংরেজিতে, বাসা ও সড়ক (নাম ও নম্বর) বাংলাতে ও ইংরেজিতে লিখতে হবে। 
উক্ত তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করার পরে আপনাকে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে। নিচের ছবিটি দেখুনঃ
পদক্ষেপ- ০৬
উক্ত ছবিতে সকল তথ্য পূরণ করা হয়ে গেলে, আপনাকে আরো একটি পেজ দেওয়া হবে। সেখানে পিতার তথ্য এবং মাতার তথ্য পূরণ করতে হবে। যেমন-
পিতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর, পিতার নাম বাংলায়, পিতার নাম ইংরেজিতে, পিতার জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, পিতার জাতীয়তা। পিতার ক্ষেত্রে যে সকল তথ্য প্রয়োজন সেটি মাতার ক্ষেত্রেও।
আপনি সেখানে সঠিক তথ্য পূরণ করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করবেন। নিচে দেওয়া ছবির মতোঃ
পদক্ষেপ-০৭
উক্ত ছবিতে যে পেজ দেখতে পারছেন। সেটি যদি সঠিক ভাবে পূরন করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করনে তাহলেই আপনার নতুন জন্ম নিবন্ধন করার কাজ সম্পন্ন হবে।
পদক্ষেপ- ০৮
নতুন জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আবেদন সম্পন্ন হওয়ার পরে আপনার সামনে পূরণ করা সকল তথ্য চলে আসবে। সেটি আপনি সাথে সাথে প্রিন্ট করে নিজের কাছে সংরক্ষণ করে রাখবেন। 
আর একটি কপি নিজ ইউনিয়ন পরিষক/সিটি কর্পোরেশন এর কার্যালয়ে জমা দিবেন। ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে আপনার নতুন জন্ম নিবন্ধন কপি হাতে পেয়ে যাবেন।
আপনার আবেদন করা জন্ম নিবন্ধন কপি কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্তদের স্বাকর নিয়ে চলে আসবেন তাহলেই আপনার কাজ শেষ।
ভবিষ্যতে যদি আপনার মনে হয় জন্ম নিবন্ধনে কোন প্রকার ভুল রয়েছে। সেক্ষেত্রে আপনি সংশোধন করার সুযোগ পাবেন।
জন্ম নিবন্ধন অনলাইন সংশোধন করার উপায়
বর্তমান সময়ে কম্পিউটার এর মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন তৈরি করা হয়। সেক্ষেত্রে দেখা যায়, অনেকের জন্ম নিবন্ধন ভুল হয়ে থাকে। সে জন্য জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার প্রয়োজন পরে।
আপনি যদি ভুল জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চান? তাহলে আপনি অনলাইনে সহজেই সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এ বিষয়েও আমরা ধাপে ধাপে দেখাব।
পদক্ষেপ- ০১
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য আপনাকে সরাসরি জন্ম নিবন্ধন এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
পদক্ষেপ- ০২
জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পরে আপনাকে একটি পেজ দেওয়া হবে। সেখান থেকে আপনাকে নির্বাচন করতে হবে “জন্ম নিবন্ধন”, “জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন” অপশনে।
পদক্ষেপ- ০৩
তারপরে আপনি নিচের অংশে দেখতে পারবেন- 
  • জন্ম নিবন্ধন নং (17) ডিজিট হতে হবে।
  • জন্ম তারিখঃ
নিচের ছবিটি দেখুনঃ

পদক্ষেপ- ০৪

সঠিক নিবন্ধন নম্বর ও তারিখ লিখার পরে নিচে থাকা অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করবেন। তারপরে একটু নিচের অংশে আপনার বর্তমান জন্ম নিবন্ধনের তালিকা দেখানো হবে।
আপনি যদি নিবন্ধন নং ও তারিখ ভুল দেন কিংবা অনলাইনে যদি জন্ম নিবন্ধন করা না থাকে তাহলে “কোন রেকর্ড পাওয়া যা নি” দেখাবে। 
আর যদি আপনার সব কিছু ঠিক থাকে তাহলে আপনার- আইডি নং, জন্ম তারিখ, নিবন্ধিত ব্যক্তির নাম, পিতার নাম, মাতার নাম ইত্যাদি প্রদর্শিত হবে। নিচের ছবিটি দেখুনঃ

পদক্ষেপ- ০৫
আপনি উক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে করার পরে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর ফরম আপনার সামনে দেওয়া হবে।
সেখান থেকে আপনার যে, লেখাটি ভুল আছে সেটি কেটে দিয়ে নতুন করে নাম বা তারিখ লিখে নিচে দেওয়া সাবমিট বাটনে ক্লিক করবেন। তারপরে নিবন্ধন কার্যালয়ে সেটি জমা হয়ে যাবে। 
আপনার নিজের ইউনিয়ন পরিষদ বা সিটি কর্পোরেশন কার্যালয়ে যোগাযোগ করে সংশোধনীয় জন্ম নিবন্ধন কপি সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।
জন্ম নিবন্ধন যাচাই
আপনি যদি জন্ম নিবন্ধনের বিষয়ে জানতে চান? তাহলে সরাসরি অনলাইন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।
পদক্ষেপ- ০১
প্রথমে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপরে আপনি একটি পেজ দেখতে পারবেন। সেখান থেকে “জন্ম নিবন্ধন” + “জন্ম নিবন্ধন তথ্য অনুসন্ধান” অপশনে ক্লিক করবেন।
নিচের ছবিটি দেখুনঃ
পদক্ষেপ- ০২
“জন্ম নিবন্ধন” + “জন্ম নিবন্ধন তথ্য অনুসন্ধান” অপশনে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার মূল সাইটে নিয়ে যাওয়া হবে।
সেখানে আপনাদের যা পূরণ করতে হবেঃ
  • Birth Registration Number (17) Digits.  
  • Date of Birth (Year/Mont/Day) 
সঠিক ভাবে লেখার পরে আপনাকে একটি যোগ ফল নামাতে হবে। যেমন- 29+29 = 58. এটিকে ক্যাপচা বলা হয়। এই ক্যাপচা একেক সময় একেক ধরণের হয়ে থাকে। আপনি সঠিক ভাবে যোগ ফল করে দিলেই হবে।
উক্ত তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করা হলে- নিচে দেওয়া সার্চ অপশনে ক্লিক করলেই আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারলেন- জন্ম নিবন্ধন যাচাই | জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন ও সংশোধন করার উপায়।

আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন যাচাই, জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন, জন্ম নিবন্ধন অনলাইন সংশোধন করা নিয়ে চিন্তি থাকেন। 

তাহলে আজ থেকে আপনি চিন্তা মুক্ত। কারণ আপনি নিজের মোবাইল, কম্পিউটার, ল্যাপটপ ব্যবহার করেই নিজের ঘরে বসে জন্ম নিবন্ধনের জন্য অনলাইন আবেদন করতে পারবেন।

আমাদের এই আর্টিকেল পড়ে আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আমাদের এই ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে আরো নতুন নতুন জনপ্রিয় পোস্ট পড়ার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন। ধন্যবাদ।